ঢাকা টু মালয়েশিয়া বিমান ভাড়া কত 2024

বাংলাদেশ এবং মালয়েশিয়ার সার্বিক পরিস্থিতির উপর ভিত্তি করে পূর্বের থেকে বর্তমানে যে কোন বিমানের ভাড়া অনেক বেশি বৃদ্ধি পেয়েছে। বহুদিন যাবৎ মালয়েশিয়া বাংলাদেশ থেকে  শ্রমিক রপ্তানি কার্যক্রম বন্ধ থাকায় ঢাকা টু মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে বিমানের যাতায়াত খুবই কম ছিল এবং বিমান ভাড়াটাও অনেক কম পাওয়া যেত।

কিন্তু বর্তমান সময়ে ঢাকা টু মালয়েশিয়া প্রতিনিয়ত বিমান সমূহ যাতায়াত করছে। এমন কি পূর্বের থেকে বর্তমানে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য বিমানসমূহের ভাড়া প্রায় দ্বিগুণ বৃদ্ধি পেয়েছে। তবে বাংলাদেশ থেকে যেহেতু ভিন্ন ভিন্ন ধরনের বিমান পরিবাহী মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে রওনা হয়ে থাকে তাই বিমান ভাড়াও অনেকটা পার্থক্যের হয়। বর্তমানে যারা মালয়েশিয়ায় যেতে যাচ্ছেন তাদের জন্য অবশ্যই ঢাকা টু মালয়েশিয়া বিমান ভাড়া কত সঠিক জেনে রাখা উচিত।

ঢাকা টু মালয়েশিয়া বিমান ভাড়া কত

গত ছয় মাস পূর্বে ঢাকা থেকে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে বিমান ভাড়া সাধারণ জনগণের হাতের নাগালেই ছিল। কিন্তু বর্তমানে অনেকটা বৃদ্ধি পেয়েছে। তাই পূর্বের বিমান ভাড়ার সমূহের যদি ধারণা থাকে, তাহলে পূর্বের ধারণা আপনাকে অবশ্যই বাদ দিতে হবে। কেননা বর্তমানে মালয়েশিয়া যেতে হলে সর্বনিম্ন ৭০ হাজার থেকে ৮০ হাজার টাকা বিমানের টিকিটের মূল্য হবে।

তবে বিমানের ক্যাটাগরির উপর ভিত্তি করে ঢাকা থেকে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে বিমানের ভাড়া অনেকটা পার্থক্যের হতে পারে। যেমন পূর্বে 20 হাজার থেকে ২৫ হাজার টাকা হলে বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া যাওয়া যেত। তবে ইকোনমি ক্লাসের যে কোন বিমানের টিকিট ২০ হাজার থেকে ৩০ হাজার টাকার মধ্যে টিকিট ক্রয় করা যেত। কিন্তু বর্তমানে মালয়েশিয়া যেতে হলে আপনাকে সর্বনিম্ন ৪৭ হাজার থেকে ৫৫ হাজার টাকা দিয়ে টিকিট ক্রয় করতে হবে।

ঢাকা থেকে মালয়েশিয়া যেতে বিমান ভাড়া কত

যদি ঢাকা থেকে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে যে কোন ক্যাটাগরি বিমান এর টিকেট গন্তব্য পেছনের ১ মাস পূর্বে টিকিট ক্রয় করে থাকেন। তাহলে আপনি টিকিটের মূল্য অনেক কম পাবেন। এছাড়াও সরকারি কোনো ছুটির দিন এবং কোন দিবস ব্যতীত টিকিট ক্রয় করলেও কম মূল্যে টিকিট পাওয়া যায়। তবে কিছু কিছু বিমানের ইকনোমিক ক্লাসের সর্বনিম্ন বিমান ভাড়া ৩০ থেকে ৩১ হাজার টাকা।

এবং বিজনেস ক্লাস ও প্রিমিয়াম ইকনোমি ক্লাসের প্রতি বিমানের টিকিট মূল্য ১ লক্ষ থেকে ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা। উদাহরণস্বরূপ বাংলাদেশ থেকে ফ্লাইট দুবাই এয়ারলাইন্স মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে চলাচল করে। তবে ইকনোমি ক্লাসের ফ্লাই দুবাইয়ের একটি টিকিট ক্রয় করলে আপনার টিকিট মূল্য হবে ১ লক্ষ ৪১ হাজার টাকা। আবার কাতার এয়ারওয়েজের প্রতি টিকিট মূল্য হবে ১ লক্ষ ৩৭ হাজার টাকা।

আপনি কত টাকার টিকিট ক্রয় করছেন সেটা আপনার উপর নির্ভর করছে। এখানে শুধুমাত্র আপনাদের ধারণা দেওয়ার উদ্দেশ্যে টিকিটের মূল্য উল্লেখ করা হচ্ছে। তবে মালয়েশিয়া যাওয়ার জন্য বাংলাদেশের বেশিরভাগ মানুষ মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্স ব্যবহার করে। কেননা এই এয়ারলাইন্স এর টিকিট মূল্য অনেক কম পাওয়া যায়। সর্বনিম্ন ৩০ হাজার থেকে ৪৫ হাজার টাকার মধ্যে এই বিমানের ইকোনমি ক্লাসের টিকিট পাওয়া যায়।

আরও দেখুনঃ মালয়েশিয়া কাজের বেতন কত

বাংলাদেশ টু মালয়েশিয়া বিমান ভাড়া কত

বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর রুটে সবথেকে বিমানের চলাচল বেশি হয়ে থাকে। অর্থাৎ যাত্রীদের অনেক ভিড় থাকে এই কুয়ালালামপুর রুটে। তাই কেউ যদি বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে পৌঁছাতে চান তাহলে তার বিমানে ভাড়া একটু বেশি হতে পারে। তবে উল্লেখ্য মালয়েশিয়ার অন্যান্য বিমানবন্দরে কুয়ালালামপুর বিমানবন্দর থেকে টিকিট মূল্য কম হয়ে থাকে।

বর্তমান সময় প্রচুর সংখ্যক বাংলাদেশ থেকে শ্রমিক মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে পাড়ি জমাচ্ছেন। আর এই মালয়েশিয়া তেরোটি রাজ্য এবং তিনটি ঐক্যবদ্ধ প্রদেশ নিয়ে গঠিত দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার একটি দেশ। প্রচুর সংখ্যক বাংলাদেশী প্রবাসী বর্তমানে মালয়েশিয়া বসবাস করছেন। তবে বর্তমানে যারা বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ায় যেতে যাচ্ছেন তাদের জন্য সর্বনিম্ন ভাড়া ৩০ হাজার টাকা। এবং সর্বোচ্চ ভাড়া দেড় লক্ষ টাকা পর্যন্ত।

মালয়েশিয়া টিকেট দাম কত

বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে মালয়েশিয়া টিকিটের দাম সর্বনিম্ন ৩১ হাজার টাকা। বাংলাদেশের বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের প্রতি টিকিটের মূল্য 32 হাজার টাকা। এবং ইকোনমি ক্লাসের সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সের প্রতি টিকিট মূল্য ৩৭ হাজার টাকা। ইউ এস বাংলা এয়ারলাইন্সের প্রতিটি টিকিটের মূল্য ৪৪ হাজার টাকা।

এবং অল্প খরচের বিমান সংস্থার মধ্যে শ্রীলংকান এয়ারলাইন্সের প্রতিটি মূল্য ৪৬ হাজার টাকা। এমিরেটস এয়ারলাইন্সের ইকোনমি ক্লাসের প্রতিটি মূল্য ৯৬ হাজার টাকা। ঠিক একই যাত্রায় সৌদি এয়ারলাইন্স এর প্রতিযোগিতার মূল্য ১ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা।

  • যে কোন বিমানের ইকোনমি ক্লাসের প্রতিটি মূল্য সর্বনিম্ন ৪০ হাজার থেকে ৭০ হাজার টাকা।
  • যেকোনো বিমানের প্রিমিয়াম ইকনোমি ক্লাসের প্রতি টিকিট মূল্য স্বাভাবিকভাবে ২ লক্ষ টাকার উপরে। তবে ২ লক্ষ টাকার নিচে প্রিমিয়াম ইকোনমি ক্লাসের কোন বিমানের টিকিট পাওয়া যায় না
  • যেকোনো বিমানের বিজনেস ক্লাস বিমানের প্রতি টিটেক মূল্য সর্বনিম্ন ৭১ হাজার থেকে ৯০ হাজার টাকা। এবং বিজনেস ক্লাস সর্বনিম্ন টিকেট মূল্য ৪ লক্ষ থেকে 5 লক্ষ টাকা।
  • আবার বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া যাওয়ার উদ্দেশ্যে যে কোন বিমানের ফার্স্ট ক্লাস প্রতি টিকিটের সর্বনিম্ন মূল্য পাবেন ৬ লক্ষ থেকে ৭ লক্ষ টাকা।

বিশেষ দ্রষ্টব্যঃ উপরে উল্লেখিত প্রতিটি টিকিটের মূল্য একমাস পূর্বে বুকিং করা। অর্থাৎ আপনার যাত্রা প্রতিটি মূল্য কম পেতে চাইলে অবশ্যই একমাস পূর্বে অথবা দুই মাস পূর্বে বুকিং করুন।

মালয়েশিয়া যেতে ইকোনমি ক্লাস এর ভাড়া

প্রায় প্রত্যেকটি বিমান সংস্থার কয়েকটি ক্যাটাগরির বিমান পাওয়া যায়। এর মধ্যে উল্লেখিত ইকোনমি ক্লাসের, প্রিমিয়াম ইকোনমি ক্লাসের, বিজনেস ক্লাস এবং ফার্স্ট ক্লাস। তবে এর মধ্যে ইকোনমি ক্লাসের বিমানের টিকিট মূল্য সব থেকে কম হয়ে থাকে। আর সব থেকে বেশি মূল্যের হয়ে থাকে বিজনেস ক্লাস এবং ফার্স্ট ক্লাস।

তবে বাংলাদেশ থেকে যারা মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্য প্রতিনিয়ত ভ্রমণ করে থাকেন। তাদের বেশিরভাগই ইকোনমি ক্লাসের বিমানের টিকেট ক্রয় করে থাকেন। তাই আপনাদের জন্য নিচে মালয়েশিয়া যেতে ইকোনমি ক্লাসের সকল বিমানের টিকিট মূল্য উল্লেখ করেছি। যেমনঃ

বিমানসমূহের নামবিমানের ক্যাটাগরি টিকিট মূল্য
মালয়েশিয়া এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস৩১ হাজার ৫০০ টাকা
বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস৩২ হাজার ৪২৩টাকা
সিঙ্গাপুর এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস৩৮ হাজার ৩২৫ টাকা
শ্রীলংকান এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস৪০ হাজার ৯০৫ টাকা
ইউএস বাংলা এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস৪০ হাজার ৯৯২ টাকা
এমিরেটস এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস১ লক্ষ ৬ হাজার টাকা
সৌদি আরাবিয়ান এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস১ লক্ষ ২৭ হাজার টাকা
কাতার এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস১ লক্ষ ৩৭ হাজার টাকা
ফ্লাই দুবাই এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস১ লক্ষ ৪১ হাজার টাকা
ইতিহাদ এয়ারলাইন্সইকোনমি ক্লাস২ লক্ষ টাকার উপরে

বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া যেতে ভাড়া কত

বর্তমানে মালয়েশিয়া একটি উঠতি শিল্পউন্নত বাজার অর্থনীতি দেশ বলে বিবেচিত। মালয়েশিয়া প্রতিনিয়ত বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে উন্নতির শিখরে পৌঁছাচ্ছে। তাই ভিন্ন দেশ থেকে প্রচুর সংখ্যক কর্মী নিয়োগ দিয়ে থাকেন এই মালয়েশিয়া। বাংলাদেশ থেকে যদি কেউ মালয়েশিয়া যেতে চান বর্তমানে ৪০ থেকে ৪৫ হাজার টাকায় আপনাকে টিকিট ক্রয় করতে হবে।

যেহেতু বেশিরভাগ বাংলাদেশী ভাইয়েরা দালালদের দ্বারা মালয়েশিয়া পৌঁছে থাকেন। তাই তাদের ক্ষেত্রে বিমানের টিকিট মূল্য অজান্তেই দালালরা বেশি টাকা আদায় করে থাকেন। তবে বিমানের সঠিক টিকিট মূল্য সর্বনিম্ন ৪০ হাজার টাকা থেকে ৫৫ হাজার টাকা। আর বিজনেস ক্লাস এবং প্রিমিয়াম ক্লাস এর বিমানের টিকিট মূল্য প্রায় ২ লক্ষ থেকে আড়াই লক্ষ টাকা।

বাংলাদেশ থেকে মালয়েশিয়া বিমানে যেতে কত সময় লাগে

যদি বাংলাদেশ থেকে সরাসরি মালয়েশিয়ার উদ্দেশ্যে ভ্রমণ করে থাকেন এক্ষেত্রে আপনার যাত্রা সময় হবে ৪৫০ মিনিট। অর্থাৎ প্রায় ৭.৫ ঘণ্টার মতো, অর্থাৎ কেউ যদি ওয়ান স্টপ বিমানসমূহ ব্যবহার করে থাকেন এক্ষেত্রে প্রায় ১০ ঘন্টা সময় লাগতে পারে। অথবা বিমানে ক্যাটাগরির উপর ভিত্তি করে সময়টা নির্ভর করছে।

অতএব সব থেকে সহজ উত্তর হচ্ছে, ননস্টপ বিমানসমূহ ব্যবহার করে যদি মালয়েশিয়ায় ভ্রমণ করে এক্ষেত্রে তিন ঘন্টা ৫০ মিনিট থেকে ৪ ঘন্টার মধ্যে পৌঁছে যাবেন। অর্থাৎ বাংলাদেশের ঢাকা হযরত শাহজালাল বিমানবন্দর থেকে সরাসরি মালয়েশিয়ার কুয়ালালামপুর বিমানবন্দরে পৌঁছাবে।

শেষ কথা

আজকের আলোচনা দ্বারা ঢাকা টু মালয়েশিয়া বিমান ভাড়া কত তার সম্পূর্ণ বিস্তারিত এবং সঠিক মূল্য উল্লেখ করার চেষ্টা করা হয়েছে। তবে আপনাদের জন্য বিশেষ বার্তা তা হচ্ছে, মালয়েশিয়া যাওয়ার এক থেকে দুই মাস পূর্বে যদি টিকিট বুকিং করে থাকেন এক্ষেত্রে টিকিটের মূল্য অনেক কম পাবেন। আশা করতেছি এই পোস্ট থেকে আপনার অনেক বেশি উপকৃত হয়েছেন। এই উপকৃত মনে হয়ে থাকে তাহলে অন্যদের মাঝে শেয়ার করে জানিয়ে দিন। ধন্যবাদ

আরও দেখুনঃ

মালয়েশিয়া ভিসা কবে খুলবে

মালয়েশিয়া ভিসা কবে খুলবে

মালয়েশিয়া কাজের বেতন কত

Leave a Comment