চার্জার ফ্যান এর দাম কত ২০২৪

বিভিন্ন বাসা বাড়িতে, এমন কি অপ্রত্যাশিত জায়গায় বিদ্যুৎ ছাড়া সুন্দর বাতাস দিতে চার্জার ফ্যানের বিকল্প নেই। বিশেষ করে এই চার্জার ফ্যান গরমের সময় অনেক বেশি উপকার করে থাকে। কারণ কারেন্ট সব জায়গায় সব সময় থাকে না, তাই বিদ্যুৎ যখন চলে যায় তখন এই চার্জার ফ্যান বিদ্যুৎ ছাড়াই আপনাকে বাতাস দিতে সক্ষম। এই চার্জার ফ্যানগুলোর বিভিন্ন বৈশিষ্ট্য থাকে। যে বৈশিষ্ট্য গুনে মানুষ চার্জার ফ্যান ক্রয় করে থাকে। আজকে চার্জার ফ্যান এর দাম ২০২৪সহ বিস্তারিত আলোচনা করব।

বিশেষ করে আপনাদের একটি প্রশ্নের উত্তর জানিয়ে দেবো তা হচ্ছে বাংলাদেশে কোন কোম্পানির চার্জার সবচেয়ে ভালো। কেননা এই ইলেকট্রনিক পণ্য ভালো মানের কেনা উচিত। তবে কোম্পানির বেদে এই ইলেকট্রিক পণ্যগুলো ভালো মানের হয়ে থাকে। এছাড়াও কোন কোম্পানির চার্জার কম দামে বিক্রি করা হয় তা নিয়েও আজকে পুরো আলোচনা করব। 

চার্জার ফ্যান এর দাম ২০২৪

এ সকল চার্জার ফ্যানগুলো আপনি অল্প টাকায় ক্রয় করতে পারবেন। আবার বেশি টাকা দিয়েও ক্রয় করতে পারবেন। দামের উপর নির্ভর করছে আপনার চার্জার ফ্যানের গুণগত বৈশিষ্ট্য। আপনি হয়তো চার্জার সম্পর্কে অবগত। অর্থাৎ চার্জার ফ্যান আপনাকে কি কি উপকার করতে পারে। প্রথমত আপনাকে গরমের সময় অনায়াসে ঘন্টার পর ঘন্টা চার্জার ফ্যান আপনাকে বাতাস দিতে সক্ষম হবে।

এই চার্জার ফ্যান যে কোন অপ্রত্যাশিত জায়গায় বহন করে নিয়ে গিয়ে বাতাস খেতে পারবেন। আর এটিই হচ্ছে চার্জার ফ্যানের সবথেকে বড় গুণ। তাই আপনি যদি চিন্তা করে থাকেন একটি চার্জার ফ্যান ক্রয় করবেন। তাহলে ভালো একটি সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেছেন। তবে চার্জার ফ্যান ক্রয় করার পূর্বে অবশ্যই এ সকল চার্জার ফ্যান এর দাম আপনাকে জেনে রাখতে হবে।

তবে নিচে এ সকল চার্জার ফ্যানের দাম কোম্পানি বেধে আলাদা করে উল্লেখ করা হয়েছে। বিভিন্ন কোম্পানির চার্জার ফ্যান এর দাম এখানে আলোচনা করেছি। যেমন ওয়ালটন কোম্পানি, ভিশন কোম্পানি, সিঙ্গার কোম্পানি,সুপারস্টার চার্জার ফ্যান,সানকা চার্জার ফ্যান, নোভা চার্জার ফ্যান ইত্যাদি। তাই সকল কোম্পানির চার্জার ফ্যানের আলাদা মূল্য জানতে একটু নিচে প্রবেশ করুন।

ওয়ালটন চার্জার ফ্যানের দাম কত

কোম্পানি বেধে অনেকেই এ সকল চার্জার ফ্যান ক্রয় করতে চান। তবে বাংলাদেশের সব থেকে জনপ্রিয় একটি কোম্পানি হচ্ছে ওয়ালটন কোম্পানি। এই ওয়ালটন কোম্পানি বাংলাদেশে ভালো মানের ইলেকট্রনিক সকল পণ্য উৎপাদন করে থাকেন। এই ওয়ালটন কোম্পানি চার্জার ফ্যান ও তৈরি করে থাকেন। এখন আপনি যদি ওয়ালটন চার্জার ফ্যান ক্রয় করতে চান তাহলে আপনি সর্বনিম্ন ২০০০ টাকায় কিনতে পারবেন। এবং সর্বোচ্চ প্রায় ৫ থেকে ১০ হাজার টাকায় ক্রয় করতে পারবেন।

ডিফেন্ডার চার্জার ফ্যানের দাম কত

আপনি জেনে অবাক হবেন হে বাংলাদেশের অন্যতম জনপ্রিয় চার্জার ফ্যানগুলোর মধ্যে চার্জার ফ্যান হচ্ছে ডিফেন্ডার চার্জার ফ্যান। এটি অনেক ভালো একটি চার্জার ফ্যান। এ সকল চার্জার ফ্যান দীর্ঘস্থায়ী বিদ্যুৎ ছাড়া বেকাপ দিতে সক্ষম। এছাড়াও এই সকল ডিফেন্ডার চার্জার ফ্যানগুলোর ভিতরে মোবাইল চার্জিং ক্ষমতা থাকে। 

অর্থাৎ ডিফেন্ডার চার্জার ফ্যান ১২ ইঞ্চি দাম ৪১০০ টাকা। এবং ১৪ ইঞ্চি ডিফেন্ডার চার্জার ফ্যানের দাম ৪৯৫০ টাকা। এছাড়াও Defender KM-F0082 ১২ ইঞ্চি চার্জার ফ্যান দাম ২৮৫০ টাকা। অর্থাৎ আপনি সর্বোচ্চ প্রায় ৫-৭ টাকায় এ সকল ডিফেন্ডার চার্জার ফ্যান অনেক ভালো মানের ক্রয় করতে পারবেন।

সিঙ্গার চার্জার ফ্যানের দাম কত

এ সকল চার্জার ফ্যানগুলো টেবিল ফ্যান হয়ে থাকে। অর্থাৎ যে কোন জায়গায় স্ট্যান্ড করে রাখা যায়। আর এই সকল সুবিধার জন্য অনেকেই এই চার্জার ফ্যানগুলো ক্রয় করে থাকেন। তবে সিঙ্গার চার্জার ফ্যান আপনি অনেক ভালো মানের পেয়ে যাবেন। বাজেট একটু বেশি হলে আরো সেরা চার্জার ফ্যান ক্রয় করতে পারবেন।

এই সিঙ্গার চার্জার ফ্যান এর তুলনামূলক দাম ২-৫ পাঁচ হাজার টাকার মধ্যে পেয়ে যাবেন। তবে কম দামের এই সিঙ্গার চার্জার ফ্যানগুলো একটু নরমাল হবে। ব্যাটারি ব্যাকআপ কম পাবেন,তবে বাজেট একটি বিষয় হলে ব্যাটারি ব্যাকআপ সহ অনেক বৈশিষ্ট্য ধারণকারী একটি সিঙ্গার চার্জার ফ্যান ক্রয় করতে পারবেন। আপনি বাজারে ১৬ ইঞ্চি সিঙ্গার চার্জার ফ্যান ১৯০০ টাকায় পাবেন।

ভিশন চার্জার ফ্যানের দাম কত

বাজারে অনেকগুলো ভিশন চার্জার ফ্যান আপনি পাবেন। এ সকল চার্জার ফ্যান চার্জ হতে বেশি সময় লাগে না এবং অল্প বিদ্যুৎ খরচে চার্জ ফুল হয়ে যায়। এবং এই চার্জার ফ্যান গুলো ৫-৫৫ ওয়াট এর পর্যন্ত হয়ে থাকে। এ সকল চার্জেবল ফ্যানগুলো পরিবেশবান্ধব। পরিবেশে কোন ক্ষতি করে না এমনকি বিদ্যুৎ খরচেও অনেকটা কমিয়ে আনতে সহায়তা করে। ভিশন চার্জার ফ্যান সর্বনিম্ন ৩০০০-৩৫০০ টাকায় ভাল একটি চার্জার ফ্যান ক্রয় করতে পারবেন। সর্বোচ্চ ৫ থেকে ৭ হাজার টাকায়।

সুপার স্টার চার্জার ফ্যানের দাম কত

এই সুপারস্টার রিচার্জেবল ফ্যানগুলো বিভিন্ন ধরনের হয়ে থাকে।  অর্থাৎ ১২ ইঞ্চি ১৪ ইঞ্চি ইত্যাদি ইত্যাদি। তবে ১২ ইঞ্চি সুপারস্টার চার্জার ফ্যানের দাম ৪ হাজার টাকা এবং ৫ হাজার টাকায় পেয়ে যাবেন। তবে দামের অনেক পার্থক্য হবে অন্যান্য সুপারস্টার ফ্যানের সাথে,যদি এ সকল চার্জার  ফ্যানের বৈশিষ্ট্য ভিন্ন রকম হয়ে থাকে। যেমন কিছু চার্জার ফ্যান রয়েছে সাথে লাইট যুক্ত রয়েছে। হঠাৎ সুপারস্টার চার্জার ফ্যান সর্বনিম্ন ৩ হাজার টাকায় এবং সর্বোচ্চ প্রায় ৭ থেকে ৮ হাজার টাকায় ক্রয় করতে পারবেন।

ক্লিক চার্জার ফ্যানের দাম কত

যারা কম দামের চার্জার কিন্তু আগ্রহী তারা চাইলে চার্জার ফ্যান কিনতে পারবেন। এই ক্লিক চার্জার ফ্যানগুলো দুই হাজার টাকার মধ্যে পাওয়া যায়। আবার তিন হাজার টাকার মধ্যেও পাওয়া যায়। তবে আপনাকে দোকানে উপস্থিত থেকে চার্জার ফ্যানগুলো ক্রয় করতে হবে। আপনার এই ক্লিক চার্জার ফ্যান  ২০০০ টাকা থেকে শুরু করে বিভিন্ন দামে পেয়ে যাবেন।

সানকা চার্জার ফ্যানের দাম কত

সানকা চার্জার ফ্যান গুলো বিভিন্ন ডিজাইনের এবং বিভিন্ন মডেলের হয়। অল্প টাকায় পাওয়া যায় আবার বেশি টাকাও পাওয়া যায়। আপনার বাজেটের উপর নির্ভর করছে আপনার সানকার চার্জার ফ্যান কেমন হবে। ২ হাজার টাকায় বা ২৫০০ টাকায় একটি সানকার চার্জার ফ্যান ক্রয় করা করতে পারবেন।  এবং সর্বোচ্চ প্রায় ৫ থেকে ৬ হাজার টাকা আপনাকে খরচ করতে হবে।

Nova চার্জার ফ্যান প্রাইস ইন বাংলাদেশ

যদি নোভা ফ্যানের দাম জানতে চান তাহলে লক্ষ্য করলে অনলাইনে দেখতে পারবেন সর্বনিম্ন ৩-৪ হাজার টাকায় এই নোভা ফ্যানগুলো বিক্রি করা হয়। এ চার্জার ফ্যানের বিভিন্ন মডেল রয়েছে। যেগুলো ভিত্তিতে আলাদা আলাদা মূল্য তালিকা উপস্থাপন করা হয়। তবে আপনাদের ধারণা দিতে পারি সর্বোচ্চ প্রায় ৫০০০ টাকা দিয়ে এই নোভা চার্জার ফ্যান ক্রয় করতে পারবেন।

কম দামে চার্জার ফ্যান

বিশেষ করে কম দামের চার্জার ফ্যানগুলো অনেকটা নিম্নমানের হয়ে থাকে।  যদি কম দামের ভিতরে ভালো মানের একটু চার্জার ফ্যান কিনতে চান তাহলে আপনাকে ১৫০০ থেকে ২০০০ টাকা খরচ করতে হবে। অথবা ১২০০-১৫০০ টাকা। তবে বিভিন্ন কোম্পানির আপনি পেয়ে যাবেন যেমন, সানকা ক্লিক চার্জার ফ্যান ইত্যাদি ইত্যাদি।

আপনি জানলে অবাক হবেন ৩২০ টাকা দিয়েও একটি চার্জার ফ্যান ক্রয় করা যায়। বুঝতেই পারছেন যেটি অনেক নিম্নমানের। এমনকি ৪০০ টাকা ৫০০ টাকা এবং ৭০০ টাকা দিয়ে একটি চার্জার ফ্যান আপনি ক্রয় করতে পারবেন।

ছোট চার্জার ফ্যানের দাম কত

ছোট চার্জার ফ্যান গুলো সাধারণ ক্ষেত্রে ১২০০ থেকে ১৫০০ টাকায় পাওয়া যায়। তবে একদম কম দামের ভিতরে যদি ছোট চার্জার কিনতে চান তাহলে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকায় পেয়ে যাবেন। এছাড়া নরমালের ভিতরে একটু ভালো মানের যদি কিনতে চান তাহলে ১৫০০ থেকে ২৫০০ টাকা অনেক ভালো  মানের একটি চার্জার ফ্যান পেয়ে যাবেন। 

কোন চার্জার ফ্যান সবথেকে ভালো

অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি বাংলাদেশের walton vision singer এই চার্জার ফ্যান গুলো অনেক ভালো মানের হয়ে থাকে সাধারণ ক্ষেত্রে।  যদি বাজেট বেশি হয়ে থাকে তাহলে এ সকল চার্জার ফ্যানগুলো আপনি কিনতে পারেন। আর যদি আপনার বাজেট কম হয়ে থাকে তাহলে ক্লিকটা চার্জার ফ্যান এবং সানকা চার্জার ফ্যান ইত্যাদি ক্রয় করতে পারেন। তবে সর্বোপরি এসকল পণ্য অনলাইনে ক্রয় না করে নিজের দোকানে গিয়ে উপস্থিত থেকে ভালোভাবে দেখে ক্রয় করুন।

শেষ কথা

এই চার্জার ফ্যানগুলো কেনার পূর্বে অবশ্যই ব্যাটারির কত ভোল্টের এবং কত ওয়াটের তা জেনে ক্রয় করবেন। আশা করতেছি এ পোস্ট পড়ে আপনারা বিভিন্ন ফ্যানের দাম সম্পর্কে জানতে পেরেছেন। বিস্তারিত আলোচনা না হলেও সংক্ষেপে আপনাদেরকে এ সকল চার্জার ফ্যান এর দাম ২০২৪ সম্পর্কে ধারণা দিতে সক্ষম হয়েছি। যদি এই পোস্ট আপনাদের কাছে ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার আশেপাশের ব্যক্তিদেরকে শেয়ার করে জানিয়ে দিবেন। ধন্যবাদ

Price Fact
Price Fact
Articles: 77

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *