তুরস্ক কাজের বেতন ২০২৪

প্রতিনিয়ত বাংলাদেশ থেকে অনেক মানুষ তুরস্ক কাজের উদ্দেশ্যে যাচ্ছে। বর্তমানে তুরস্কের অর্থনৈতিক অবস্থা অনেক ভালো। তুরস্ক হলো পশ্চিম এশিয়া ও দক্ষিণ পূর্ব ইউরোপের একটি রাষ্ট্র। তুরস্কের রাজধানী হল আঙ্কারা। তুরস্কের বেশিরভাগ জায়গা পশ্চিম এশিয়ার মধ্যে রয়েছে। এবং অল্প একটু দক্ষিণ-পূর্ব  ইউরোপের সীমানায় অবস্থিত। বর্তমানে তুরস্কের কাজের ভিসা চালু রয়েছে। কিছু মানুষ দালাল অথবা এজেন্সির মাধ্যমে তুরস্কের কাজের ভিসার জন্য আবেদন করতেছে।

প্রত্যেকে তুরস্ক কাজের ভিসা যাওয়ার আগে বেতন সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে। তুরস্কের বেশিরভাগ ক্ষেত্রে ঘন্টা ভিত্তিক কাজের বেতন দিয়ে থাকে। এবং কিছু কিছু কোম্পানি রয়েছে তারা মাসিক বেতন নির্ধারণ করে। কাজের উপর ভিত্তি করে বেতন নির্ধারণ করা হয়। অভিজ্ঞতা যদি ভালো থাকে তাহলে প্রতি মাসে বেশি টাকা বেতন উত্তোলন করতে পারবেন। আপনি আমাদের সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়লে তুরস্ক কাজের বেতন কত এ সম্পর্কে বিস্তারিত জানতে পারবেন।

তুরস্ক কাজের বেতন

কাজের উপর ভিত্তি করে বেতন কমবেশি হতে পারে। কাজের ক্যাটাগরি অনুযায়ী বেতন কমবেশি হয়। এখন দালাল অথবা এজেন্সির মাধ্যমে তুরস্কের কাজের বেতন সম্পর্কে সঠিক তথ্য জানা যায় না। বর্তমান সবাই তুরস্কে কাজের উদ্দেশ্যে যাওয়ার আগে বেতন সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে।

কারণ বেতন যদি বেশি থাকে তাহলে সবাই সেই কাজের প্রতি আগ্রহ বাড়ে। প্রতিবছরের কাজের দক্ষতার বৃদ্ধি হওয়ার সাথে বেতন ধীরে ধীরে বৃদ্ধি হতে থাকবে। তুরস্ক গেলে আপনি সর্বনিম্ন ৩৫ হাজার টাকা থেকে শুরু করে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতন উত্তোলন করতে পারবেন।

তুরস্ক শ্রমিকের বেতন কত

বর্তমানে তুরস্কে শ্রমিকের চাহিদা ব্যাপক। কারণ তাদের কাজ অনুযায়ী শ্রমিক অনেক কম। এ কারণেই প্রতিবছরে সরকারিভাবে তুরস্কে শ্রমিক নিয়োগ করে থাকে। এবং অন্যান্য কাজের তুলনায় শ্রমিকের কাজে অনেক বেশি টাকা বেতন উত্তোলন করা যায়। কনস্ট্রাকশন থেকে শুরু করে আরো অন্যান্য শ্রমিকদের কাজ রয়েছে। কাজের অভিজ্ঞতার উপর ভিত্তি করে বেতন কমবেশি হতে পারে। আপনি সর্বনিম্ন শ্রমিকের কাজ করে প্রতি মাসে ৪৫ হাজার টাকা থেকে ৭০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতন উত্তোলন করতে পারবেন।

তুরস্কের সর্বনিম্ন বেতন কত

সবাই তুরিস্কে যাওয়ার সময় সর্বনিম্ন বেতন সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে। কারণ প্রত্যেকটা কাজেরই একটি সর্বনিম্ন বেতন নির্ধারণ করা আছে। বিশেষ করে তুরস্ক দেশের অর্থনৈতিক অবস্থা বিবেচনা টাকার মান কম বেশি হয়। এবং বেশিরভাগ ক্ষেত্রে সবার নতুন অবস্থায় কোন কাজ শুরু করে। কাজের অভিজ্ঞতা না থাকলে প্রতি মাসে আপনি একটু কম টাকা বেতন উত্তোলন করতে পারবেন। অর্থাৎ তুরস্ক গিয়ে আপনি সর্বনিম্ন ৩০ হাজার টাকা পর্যন্ত বেতন উত্তোলন করতে পারবেন। এবং কাজের অভিজ্ঞতা বাড়লে ধীরে ধীরে আপনার বেতন বৃদ্ধি হবে।

তুরস্ক যেতে কত টাকা লাগে

আপনার ভিসার ক্যাটাগরির উপর খরচ নির্ভর করবে। বর্তমানে অনেকেই ভ্রমণ করতে অথবা কাজের উদ্দেশ্যে তুরস্ক চলে যাচ্ছে। আগের তুলনায় তুরস্কের ভিসা করতে এখন বেশি টাকা খরচ হয়। সবাই তুরস্ক যাওয়ার আগে ভিসা সম্পর্কে জানার চেষ্টা করে। সরকারিভাবে তুরস্কের ভিসা পেলে সবচেয়ে কম খরচ হয়।

বর্তমানে প্রায় প্রত্যেকটা দেশের ভিসা খরচ অনেক বৃদ্ধি হয়েছে। আপনি যদি দালাল অথবা এজেন্সির মাধ্যমে তুরস্কর ভিসা করেন তাহলে বেশি টাকা খরচ হবে। অর্থাৎ আপনি যদি ভ্রমণ করতে অথবা স্টুডেন্ট ভিসায় তুরস্ক যেতে চান তাহলে খরচ হবে প্রায় ৩ লক্ষ টাকা থেকে ৪ লক্ষ টাকা। না এবং কাজের উদ্দেশ্যে তুরস্ক যেতে চাইলে ৫ লক্ষ টাকা থেকে ৭ লক্ষ টাকা খরচ হবে।

শেষ কথা

আপনারা যারা কাজের জন্য তুরস্ক যেতে চাচ্ছেন। তুরস্ক যাওয়ার আগে বেতন সম্পর্কে জেনে নেওয়া উচিত। এর মাধ্যমে সঠিক বেতনের খবর জানা যায় না। ইতিমধ্যে আমরা এই পোষ্টের মাধ্যমে তুরস্ক বিভিন্ন কাজের বেতন সম্পর্কে উল্লেখ করেছি। আশা করি আপনি আমাদের সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়েছেন এবং তুরস্ক কাজের বেতন কত জানতে পেরেছেন। এরকম আরো গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জানতে আমাদের ওয়েবসাইটটি শেয়ার করে রাখুন। ধন্যবাদ

Ashraful Islam
Ashraful Islam
Articles: 254

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *