কুকুরের কামড়ের ইনজেকশন দাম কত ২০২৪

বাংলাদেশের সরকারি কোন হাসপাতালে কুকুরের ভ্যাকসিন গ্রহণ করলে বা ইনজেকশন প্রদানে কোন রকম টাকা নেয়া হয় না। একদম ফ্রিতে কুকুরের কামড়ের ইনজেকশন প্রদান করা হয়। তবে কোন প্রাইভেট হাসপাতালে আপনার কাছ থেকে নূন্যতম ৯০০ টাকা কুকুরের কামড়ের ইনজেকশনের দাম রাখতে পারে।

এছাড়া প্রাইভেট হাসপাতাল বা বিভিন্ন ধরনের ক্লিনিক বেধে এই ভ্যাকসিনের দাম ১ হাজার টাকা ১৫০০ টাকা পর্যন্ত আপনার কাছ থেকে রাখতে পারে। তাই এই পোস্ট থেকে কুকুরের কামড়ের ইনজেকশন দাম কত তা সঠিক জেনে প্রতারণা থেকে বাঁচুন। এবং কুকুর কামড়ালে অতিসত্বর ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করে ভ্যাকসিন গ্রহণ করুন।

কুকুরের কামড়ের ইনজেকশন দাম কত

জলাতঙ্ক একটি মারাত্মক ভাইরাস জনিত রোগ। যা সাধারণত র‌্যাবিস ভাইরাসের আক্রমণের কারণে একজন মানুষের শরীরে এ রোগ দেখা দিতে পারে। এ ভাইরাস মানুষের রক্তের মাধ্যমে শরীরে অথবা স্পর্শের কারণেও শরীরে প্রবেশ করতে পারে। সাধারণত র‌্যাবিস ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত ক্ষ্যাপা কুকুর বা অসুস্থ কুকুরের মুখের লালায় এ ভাইরাসটি অবস্থান করে।

ভাইরাস দ্বারা আক্রান্ত কোন কুকুর কামড়ালে প্রথম দিনেই টিকা গ্রহন করতে হয়। এবং ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী নির্দিষ্ট ডোজ পর্যন্ত জিরো ডে ভ্যাকসিনেশন সহ অন্য যে কোন ইনজেকশন বা টিকা গ্রহণ করতে হয়। সঠিক চিকিৎসা এবং ডাক্তারের পরামর্শ অনুযায়ী ডোজ নিলে এ ভাইরাস থেকে মুক্তি লাভ করা যায়। আর এই কুকুরের কামড়ের ইনজেকশন এর দাম কত তা নিচে উল্লেখ করা হয়েছে।

কুকুরের ভ্যাকসিন দাম কত ২০২৪

সাধারণত কুকুর কামড়ানোর পর সদর হাসপাতাল বা সরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা গ্রহণ করলে ভ্যাকসিনের কোনরকম টাকা নেয়া হয় না। তবে বিভিন্ন প্রাইভেট হসপিটালে কুকুরের ভ্যাকসিনের দাম আপনার কাছ থেকে নূন্যতম ৯০০ টাকা রাখতে পারে। তবে অনেকেই আর্থিক সমস্যা কারণে পুকুরের ভ্যাকসিন নিতে সমস্যা করে যান।

তবে ভ্যাকসিনের দাম যতই হোক না কেন অবশ্যই জ্বলাতন্ত্র রোগ থেকে বেঁচে থাকতে আপনাকে ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হবে। তবে চেষ্টা করবেন কোন সদর হসপিটালে গিয়ে ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে। কেননা সেখানে কোনরকম টাকা নেওয়া হয় না। কুকুর কামড়ানোর জলাতংক ভাইরাসের প্রকোপ থেকে বেঁচে থাকতে অবশ্যই ভ্যাকসিন গ্রহণ করুন।

র‌্যাবিস ভ্যাকসিন এর দাম বাংলাদেশে

আমাদের দেশের মানুষের শতকরা ৯৫ ভাগ জলাতঙ্ক রোগ হয়ে থাকে কুকুরের কামড়ের কারণে। ক্ষতিকর র‌্যাবিস ভাইরাস দ্বারা কুকুর আক্রান্ত হলে পরবর্তীতে কোন মানুষের শরীরে কামড়ালে তা র‌্যাবিস ভাইরাস মানুষের শরীরে প্রবেশ করে। আর এই র‌্যাবিস ভাইরাসের কারণে জলাতঙ্ক রোগ হয়ে থাকে।

কোনো সরকারি হাসপাতাল অথবা সদর হাসপাতালে প্রবেশ করলে কুকুর কামড়ালে ভ্যাকসিন ফ্রিতে প্রদান করা হয়। কিন্তু কোন ক্লিনিক অথবা প্রাইভেট হাসপাতালে কুকুর কামড়ানোর ভ্যাকসিন গ্রহণ করে থাকেন। এক্ষেত্রে ন্যূনতম ৯০০ টাকা থেকে ১০০০ টাকা পর্যন্ত আপনার কাছ থেকে ভ্যাকসিনের দাম রাখতে পারে।

কুকুর কামড়ালে কি ভ্যাকসিন দিতে হয়

যে জায়গায় কুকুর কামড়াবে সে জায়গায় সরাসরি হাত দিয়ে স্পর্শ করা যাবে না। কেননা হাতের মাধ্যমে শরীরে কুকুরে থাকা র‌্যাবিস ভাইরাস বা জীবাণু প্রবেশ করতে পারে। প্রাথমিক চিকিৎসার ক্ষেত্রে যে জায়গায় কামড়াবে সেই জায়গায় অ্যান্টাসেপটিক বা ডেটল দিয়ে ভালোভাবে পরিষ্কার করে নিতে হবে।

এবং কুকুর কামড়ালে ডাক্তারের কাছে শরণাপন্ন হয়ে কয়েকটি ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হয়। এর মধ্যে ডাক্তার আপনাকে কুকুরের ভ্যাকসিন হিসেবে রাবিপুর ইনজেকশন অথবা জিরো ডে ভ্যাকসিনেশন প্রদান করতে পারে। তবে প্রত্যেক ভ্যাকসিনের ক্ষেত্রে ৩, ৭, ১৪, এবং ৩০ দিনের মধ্যে চারটি অতি গুরুত্বপূর্ণ টিকা ডোজ হিসেবে নিতে হয়।

কুকুর কামড়ালে কত দিনের মধ্যে টিকা দিতে হয়?

যত দ্রুত সম্ভব পারা যায় নিকটস্থ ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করা উচিত। এবং খুবই দ্রুত কুকুরের কামরের  ভ্যাকসিন গ্রহণ করা উচিত। কুকুরের কামড়ানোর কারণে সাধারণত একজন মানুষের শরীরে জলাতঙ্ক রোগ হয়ে থাকে। যেটা পরবর্তীতে মানুষের মৃত্যুর কারণ হয়। তবে যেদিন কুকুর কামড়াবে ঠিক সেদিন আপনাকে কুকুর কামড়ানোর ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে হবে।

অর্থাৎ ২৪ ঘন্টার মধ্যেই প্রথম ডোজ গ্রহন করতে হবে। আর কোন কারনে মিউনোগ্লোবিন পাওয়া না গেলে প্রথম ডোজে দুই বাহুতে দুইটি টিকা নিতে হবে। এর পরবর্তীতে ৩,৭, ১৪ ও ২৮তম দিনে নিয়ে ডোজ পূর্ণ করতে হবে। আর কুকুটি কামড়ানোর 10 দিন পর্যন্ত সম্পূর্ণ সুস্থ থাকে তাহলে পরের দুটি দুধ আপনাকে দিতে হবে না। তবে অবশ্যই কুকুর কামড়ালে প্রথম দিনেই আপনাকে টিকা দিতে হবে।

শেষ কথা

আশা করতেছি ইতিমধ্যে এই পোস্ট থেকে আপনারা কুকুরের কামড়ের ইনজেকশন দাম কত তা বিস্তারিত জানতে পেরেছেন। সাধারণ ক্ষেত্রে কামড় এবং কুকুরের আঁচড় একজন মানুষের জন্য মৃত্যুর কারণ হতে পারে। তাই অবহেলা না করে অবশ্যই আপনার নিকটস্থ ডাক্তারের সাথে যোগাযোগ করুন। এবং প্রয়োজনীয় ভ্যাকসিন গ্রহণ করুন। ধন্যবাদ

Leave a Comment