দুবাই ভিসার দাম কত ২০২৪

প্রতিবছরের দুবাই থেকে বিভিন্ন কাজের জন্য অন্যান্য দেশ থেকে শ্রমিক নিয়ে থাকে। দুবাই পৃথিবীর মধ্যে অন্যতম একটি দেশ। এদেশে অনেকেই আছে ভ্রমণ করার উদ্দেশ্যে যে থাকে। আবার বাংলাদেশ থেকে অনেক মানুষ কাজের জন্য দুবাই ভিসা করে থাকেন। কিন্তু অনেকেই আছেন দুবাই ভিসার দাম কত ২০২৪ এ সম্পর্কে কোন কিছু জানেন না। আজকে আপনাদেরকে দুবাই বিভিন্ন ভিসার দাম সম্পর্কে জানাবো।

বিভিন্ন ভিসার দাম সম্পর্কে জানতে হলে এই পোস্টটি পড়তে থাকুন। দুবাই সরকার প্রতিবছরে কোম্পানি এবং বিভিন্ন কাজের জন্য সার্কুলার দিয়ে থাকে। তার মধ্যে বাংলাদেশ থেকে অনেক মানুষ কাজের উদ্দেশ্যে দুবাই ভিসা করতে চাচ্ছে। সবাই ভিসা করার আগে ভিসার খরচ এবং অন্যান্য খরচ সম্পর্কে জানতে চায়।

আজকে আপনাদেরকে দুবাইয়ের ভিসার দাম কত এবং বাংলাদেশ থেকে দুবাই যেতে কত টাকা লাগবে, দুবাই কোম্পানির ভিসা, কাজের ভিসা, ফ্রি ভিসা, স্টুডেন্ট ভিসা, ভিজিট ভিসা সকল ধরনের ভিসা খরচ সম্পর্কে এবং দুবাইয়ের কোন কাজের চাহিদা বেশি এই সকল তথ্য আপনাদেরকে জানাবো। দুবাই সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানতে চাইলে আমাদের সম্পূর্ণ পোস্টটি পড়ুন।

দুবাই ভিসার দাম কত

এখন আপনাদের সাথে দুবাইয়ের ভিসার দাম কত সম্পর্কে আলোচনা করবো। বাংলাদেশ থেকে বিভিন্ন এজেন্সির মাধ্যমে করতে গেলে অনেকটাই খরচ বেশি হয়। আপনি যদি শুধু দুবাইয়ের ভিসার দাম কত জানতে চান। চলুন তাহলে দুবাইয়ের ভিসা দাম কত দেখে নেওয়া যাক। একটি দুবাইয়ের ভিসা করতে সর্বোচ্চ আপনাকে ২০ থেকে ৪০ হাজার টাকা খরচ হবে। ভিসার মধ্যে অনেকগুলো ক্যাটাগরি রয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী আপনার খরচ কম বেশি হয়ে থাকে। বাংলাদেশ থেকে আপনার ভিসা করতে গেলে বিমান ভাড়া তারপরে আরো এজেন্সি খরচ আরো বিভিন্ন খরচ দিয়ে অনেকটাই দুবাই ভিসার দাম বেশি পড়ে যায়। সবকিছু খরচ দিয়ে কত টাকা পড়বে সেটা আমরা নিচের লেখাগুলোর মাধ্যমে আলোচনা করেছি।

দুবাই যেতে কত টাকা লাগে ২০২৪

এখন আপনাদেরকে দুবাই যেতে কত টাকা লাগে সে সম্পর্কে জানাবো। মানুষ সবাই একটু বেশি টাকা ইনকাম করার জন্য বাইরের রাষ্ট্র কাজের উদ্দেশ্যে চলে যায়। সবাই কোন এক দেশে যাওয়ার আগে সেই দেশে যাওয়ার ভিসা খরচ এবং বিভিন্ন খরচ সম্পর্কে জানতে চায়। আজকে আপনারা জানতে পারবেন বর্তমান সময় দুবাই যেতে কত টাকা লাগে। দুবাইয়ের ভিসার মধ্যে অনেকগুলো ক্যাটাগরি রয়েছে। ক্যাটাগরি অনুযায়ী ভিসার দাম হয়। দুবাইয়ের ভিসা খরচ সর্বোচ্চ ৮ থেকে ১০ লক্ষ টাকা। আপনি যদি ১০ লক্ষ টাকা বাজেট রাখেন তাহলে আপনার পছন্দ অনুযায়ী দুবাইয়ের ভিসা করতে পারবেন।

দুবাই ভিসা ২০২৪ আজকের খবর

প্রতিনিয়ত সব জিনিসের দাম উঠানামা করে। তার মধ্যে ভিসার দাম অনেক সময় কম বেশি হয়ে যায়। সবাই চাই যে আজকের খবর শুনতে। এখন আপনাদেরকে আজকের দুবাই ভিসা ২০২৪ দাম জানাবো। আপনি যদি একটি দুবাইয়ের ভিসা করতে চান তাহলে কি ভিসা করবেন এইটা আগে সিলেক্ট করতে হবে। আপনার পছন্দ মতো ভিসা করতে হলে সর্বনিম্ন আপনাকে ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা থেকে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বাজেট রাখতে হবে। এবং বিভিন্ন কাজের বিষয় গেলে আপনাকে সর্বোচ্চ ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত বাজেট রাখতে হবে। তাহলে আপনি দুবাইয়ের ভিসা করতে পারবেন।

দুবাই কোম্পানি ভিসা ২০২৪

এখন আপনাদেরকে দুবাই কোম্পানি ভিসা খরচ কত হবে সেই সম্পর্কে বিস্তারিত জানাবো। দুবাই হলো একটি শহর বা রাজধানী। এ শহরটি হলো আরব আমিরাত দেশের রাজধানী। দুবাইয়ে অনেকগুলো কোম্পানির থেকে শ্রমিক নিয়োগ করে থাকে। কোম্পানির মধ্যে অনেকগুলো কাজের ধরন রয়েছে। সম্পূর্ণ আপনার দালাল বা এজেন্সির সাথে কথা বলে আপনি ভালো কাজ এবং ভালো বেতনে দুবাই যেতে পারবেন। দুবাই ভালো কাজ পেতে হলে আপনাকে বেশি টাকা খরচ করে ভিসা কিনতে হবে। আপনি যদি একটি দুবাইয়ের কোম্পানির ভিসা কিনতে চান তাহলে আপনার খরচ ৮ থেকে ৯ লক্ষ টাকা লাগবে। তাহলে আপনি দুবাইয়ের কোম্পানির ভিসা পেতে পারেন।

দুবাই কাজের ভিসা খরচ

বর্তমান দুবাই সরকার অভিজ্ঞ ব্যক্তিদের সুযোগ-সুবিধা বেশি দিয়ে থাকে। বাংলাদেশ থেকে অনেক লোক এখন বিভিন্ন কাজের পারদর্শী হয়ে তারপর দুবাইয়ের কাজের ভিসা করে থাকে। আপনি যদি দুবাই কাজের ভিসা সরকারিভাবে যেতে চান তাহলে আপনাকে একবারে কম খরচে যেতে পারবেন। সরকারি কাজের ভিসা পেলে সর্বোচ্চ আপনার ২ লক্ষ টাকা থেকে ২ লক্ষ ৫০ হাজার টাকা খরচ হবে। আর আপনি যদি বেসরকারিভাবে দুবাইয়ের কাজের ভিসা করতে চান তাহলে আপনার খরচ হবে সাড়ে ৩ লক্ষ টাকা থেকে ৫ লক্ষ টাকা।

দুবাই ফ্রি ভিসা

এখন আপনাদেরকে দুবাইয়ের ফ্রি ভিসা সম্পর্কে জানাবো। দুবাই ফ্রি ভিসা অনেকগুলো সুযোগ সুবিধা রয়েছে। তাহলে আপনার ইচ্ছা মত যে কোন কাজ করতে পারবেন। এবং ফ্রি ভিসা গেলে অনেক ভালো টাকায় ইনকাম করা যায়। আপনি যদি দুবাই ফ্রি ভিসায় যেতে চান তাহলে ৫ লক্ষ টাকা থেকে ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত খরচ হবে। তাহলে আপনার পছন্দ অনুযায়ী ভিসার ক্যাটাগরি সিলেক্ট করে দুবাইয়ের ফ্রি ভিসা করতে পারবেন।

দুবাই ভিজিট ভিসা খরচ ২০২৪

বাংলাদেশ থেকে অনেক মানুষ আছে তারা দুবাই ভিজিট ভিসা যেতে চায়। এখন আপনাদেরকে ভিজিট ভিসার দাম সম্পর্কে জানাবো। আপনি বাংলাদেশ থেকে আপনি এজেন্সির মাধ্যমে এই দুবাইয়ের ভিজিট ভিসা করতে পারবেন। আপনি যদি ভিজিট ভিসা করতে চান কোন এজেন্সির মাধ্যমে তাহলে আপনার খরচ হবে ২ লক্ষ টাকা থেকে ৩ লক্ষ টাকা। এবং আপনি যদি সরকারি থেকে দুবাই ভিজিট ভিসা পেয়ে যান তাহলে আপনার খরচ হবে ১ লক্ষ টাকা থেকে ২ লক্ষ টাকা।

দুবাই স্টুডেন্ট ভিসা খরচ

বাংলাদেশ থেকে অনেক ছাত্র আছে তারা উচ্চ শিক্ষিত হওয়ার জন্য স্টুডেন্ট ভিসায় দুবাইয়ে যেয়ে থাকে। আবার অনেকে আছে তারা সরকারি স্কলারশিপ পেয়ে দুবাই পড়াশোনা করে। যারা সরকারিভাবে স্কলারশিপ পেয়ে যায় তাদের অনেকটাই খরচ কম হয়। তাদের সর্বোচ্চ ১ থেকে ২ লক্ষ টাকা খরচ হয়। এবং যারা বেসরকারিভাবে কোন এজেন্সির মাধ্যমে স্টুডেন্ট ভিসা করে থাকে তাদের একটু বেশি খরচ হয়। তাদের ৪ লক্ষ থেকে ৫ লক্ষ টাকা খরচ হয় স্টুডেন্ট ভিসা করতে।

দুবাই কোম্পানি ভিসা বেতন কত

দুবাইয়ের কোম্পানির ভিসার বেতন সম্পূর্ণ নির্ভর করে সেই দালাল বা এজেন্সির মাধ্যম। আপনার যদি ভালো ভিসা বেশি টাকা বেতনে নিয়ে দেয়, তাহলে আপনি অনেকটাই ভালো বেতন পাবেন। কিছু কিছু দালাল আছে তারা বেশি টাকা নিয়ে কম টাকার বেতনে কোম্পানির ভিসা দেয়। আপনি যদি সঠিকভাবে কি কোম্পানির ভিসা যেতে পারেন তাহলে বেতন পাবেন সর্বোচ্চ ৭০ থেকে ৮০ হাজার টাকা। এবং অনেকেই আছে তাদের ৫০ থেকে ৬০ হাজার টাকা ও কোম্পানির বেতন রয়েছে। সম্পূর্ণ কোম্পানির বেতন আপনার ভিসার ক্যাটাগরির উপর নির্ভর করবে। এবং আপনার যদি আগে থেকে অভিজ্ঞতা বেশি থাকে তাহলে আপনি আর বেশি টাকা বেতন তুলতে পারবেন।

দুবাই ভিজিট ভিসা কি বন্ধ

অনেকের মনে প্রশ্ন থাকে দুবাইয়ের ভিজিট ভিসা বর্তমান সময়ে বন্ধ আছে কিনা? দুবাই থেকে অনেক সময় ভিজিট ভিসা বন্ধ করে দেয়। তাদের নির্দিষ্ট সময়ে ভিজিট ভিসা আবার খুলে দেয়। বর্তমানে এ বছর ২০২৪ সাল থেকে ভিজিট ভিসা চালু রয়েছে। আপনারা যারা ভ্রমণ করার উদ্দেশ্যে ভিজিট ভিসা করতে চাচ্ছেন। তারা চাইলে কোন এজেন্সির মাধ্যমে ভিজিট ভিসা করতে পারবেন। ভিজিট ভিসা আপনি ১ থেকে ৩  মাসের মধ্যেই ভিসা প্রসেসিং করতে পারবেন।

দুবাই কোন কাজে চাহিদা বেশি

যারা কাজের উদ্দেশ্যে দুবাই যেতে চায় তারা যাওয়ার আগে কি কি কাজ করতে হবে সে সম্পর্কে ধারনা নিতে চায়। দুবাই গেলে অনেক কিছু কাজ রয়েছে আপনার ভিসা এবং এদের সাথে কন্টাক করে কাজ করতে পারবেন। এখন আপনাদেরকে দুবাই কোন কোন কাজের চাহিদা বেশি এই কাজগুলো জানাবো। 

  • কন্সট্রাকশন এর কাজ। 
  • হোটেল এর কাজ। 
  • ক্লিনিং এর কাজ। 
  • ফ্যাক্টরি কর্মী এর কাজ।
  • মেকানিক্যাল এর কাজ। 
  • ইলেকট্রিক্যাল এর কাজ। 
  • সিকিউরিটি গার্ড এর কাজ। 
  • রড ক্লিনার এর কাজ।

দুবাই ভিসা আবেদন এর প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

আপনারা অনেকেই আছেন দুবাইয়ের ভিসা আবেদন করতে কি কি কাগজপত্র লাগে সে সম্পর্কে জানেন না। আপনারা কোন এজেন্সির মাধ্যমে ভিসার আবেদন করতে হলে অবশ্যই আপনার প্রয়োজনীয় কিছু ডকুমেন্টস লাগবে। কি কি ডকুমেন্টস লাগবে সেগুলো দেখে নিন। যেমনঃ

  1. আপনার একটি সচল পাসপোর্ট সেই পাসপোর্ট এর সর্বনিম্ন ৬ মাস পর্যন্ত মেয়াদ থাকতে হবে। 
  2. সঠিকভাবে পূরণকৃত ভিসার অ্যাপ্লিকেশন ফরম।
  3. আপনি যে পেশায় আছেন সেই পেশার সার্টিফিকেট। 
  4. আপনার নিজস্ব ২ কপি পাসপোট সাইজের রঙিন ছবি। 
  5. আপনার কাজের অভিজ্ঞতার সনদপত্র। 
  6. করনার ভ্যাকসিনের সনদপত্র। 
  7. চারিত্রিক সনদপত্র। 
  8. পুলিশ ক্লিয়ারেন্স।

শেষ কথা

আপনারা যারা দুবাই ভিসার খরচ সম্পর্কে জানতে চেয়েছিলেন। আশা করি আপনি আমাদের সম্পূর্ণ পোষ্ট পড়েছেন। ইতিমধ্যে আমাদের এই পোস্টটি পড়ে দুবাই সম্পর্কে বিভিন্ন তথ্য জানতে পেরেছেন এবং দুবাই ভিসার দাম কত ২০২৪ এর সঠিক তথ্য পেয়েছেন। প্রতিনিয়ত আমরা এই ওয়েবসাইটের মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন দেশের ভিসার দাম সম্পর্কে আলোচনা করে থাকি। আপনার যদি আমাদের এই পোস্টটি পড়ে ভালো লেগে থাকে তাহলে অবশ্যই আপনার আশেপাশের বন্ধুদের সাথে শেয়ার করে দিন। ধন্যবাদ

Ashraful Islam
Ashraful Islam
Articles: 253

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *